ওয়েব ডেভেলপারদের জন্য ৫টি জনপ্রিয় মাল্টিল্যাঙ্গুয়েজ ওয়ার্ডপ্রেস প্লাগিন

বর্তমান বিশ্বায়নের যুগে যেকোনো ক্ষুদ্র বা বড় ব্যবসায় গুলো দেশের গন্ডি ছাড়িয়ে বহির্বিশ্বে যাওয়াটা অস্বাভাবিক কিছু না। বরং যথেষ্ট সম্মান ও প্রাপ্তিরই বটে। মজার ব্যাপার হল, সব ব্যবসায়ের ফিজিক্যাল কাঠামো প্রয়োজন হয়না বলে, যেকেউ খুব সহজে ওয়ার্ডপ্রেস দিয়ে একটি ওয়েবসাইট তৈরি করেই সেটি নিয়ে কাজ করতে পারেন বিশ্বের যেকোনো প্রান্ত পর্যন্ত। কিন্তু, সমস্যা হল, সবাইতো বাংলা বা ইংরেজি বা চাইনিজ বা রাশিয়ান ভাষা বুঝেনা। তাহলে আপনি কিভাবে নিজের বিজনেস সেইসব দেশগুলোতে প্রতিষ্ঠা করবেন? উপায় জানা আছে? 🙂

এই সমস্যা সমাধানের জন্য আমি আপনাদের সাথে ওয়ার্ডপ্রেসের জনপ্রিয় ৫টি প্লাগিনের নাম এবং সেগুলো ব্যবহার করে সহজেই আপনার ওয়েবসাইটকে যেকোনো ভাষায় ভাষান্তর করতে পারবেন, সেই পদ্ধতিগুলো সংক্ষেপে শেয়ার করবো। যারা ওয়ার্ডপ্রেস দিয়ে ওয়েব ডেভেলপমেন্ট করেন, বা ক্লাইন্টকে ওয়ার্ডপ্রেস সাইট ট্রান্সলেশনে সার্ভিস দিতে ইচ্ছুক, তাদের জন্যও এই প্লাগিনগুলো অনেক হেল্প করতে। তাহলে চলুন শুরু করা যাক –

১। WPML

এটি ওয়ার্ডপ্রেসের সবচেয়ে জনপ্রিয় ট্রান্সলেশন সিস্টেম প্লাগিন। এটি একটি পেইড প্লাগিন। অর্থাৎ, বিভিন্ন প্যাকেজ সিস্টেম আছে, আপনাকে কিনে ইউজ করতে হবে। প্লাগিনটির সাথে অনেকগুলো মডিউলস/আডনস আছে, যা মূল প্লাগিনটিকে পুরো সাইটে কনটেন্ট ট্রান্সলেশনের কাজে হেল্প করে। ইন্সটলেশন অন্যান্য ওয়ার্ডপ্রেস প্লাগিনের মতই। তবে, মূল প্লাগিনের সাথে প্রয়োজনীয় মডিউলস/আডনস গুলো ইন্সটল করে নিয়ে কাজ করতে হবে।

মূল প্লাগিন ফোল্ডারটি নামঃ sitepress-multilingual-cms, সাথে যে কয়েকটি মডিউলস/আডনস অবশ্যই থাকা উচিৎ সেগুলো হচ্ছেঃ wpml-media, wpml-string-translation, wpml-translation-management। এই ৩টির মধ্যে হতে wpml-string-translation মডিউল/আডন-টি অবশ্যই অবশ্যই ইন্সটল থাকা বাধ্যতামূলক। অন্যথায়, আপনি কোন কনটেন্ট ট্রান্সলেশন করতে পারবেন না।

প্লাগিনটি মাধ্যমে আপনি প্রতিটি ভাষার জন্য আলাদা করে ইউআরএল সেট করতে পারবেন, যা এসইও এর জন্য অনেক বড় সাপোর্ট। ইন্সটল করার পর ড্যাশবোর্ড থেকে WPML অপশন থেকে প্লাগিনটির সব সেটিংস করতে পারবেন।

ডাউনলোড এবং ডকুমেন্টেশনের জন্য এই লিঙ্কে ভিজিট করুণ।

২। Q-Translate

অনেক জনপ্রিয় এই প্লাগিনটি সম্পূর্ন ফ্রিতে ব্যবহার করতে পারবেন। ওয়েবসাইটের প্রতিটি কনটেন্টকে ট্রান্সলেশনের জন্য ফ্রি এই প্লাগিনটি অনেক জনপ্রিয় এবং এখন পর্যন্ত ১,০০,০০০ এর বেশি ওয়েবসাইটে এটি ইন্সটল আছে, এবং সাফল্যের সাথে ট্রান্সলেশন কাজ পরিচালনা করছেন ডেভেলপাররা। ইন্সটলেশন অন্যান্য ওয়ার্ডপ্রেস প্লাগিনের মতই। ইন্সটল করার পর ড্যাশবোর্ড থেকে Settings > Languages অপশন থেকে প্লাগিনটির সব সেটিংস করতে পারবেন।

ডাউনলোড এবং ডকুমেন্টেশনের জন্য এই লিঙ্কে ভিজিট করুণ।

৩। Polylang

WMPL এবং Q-Translate প্লাগিনের মিক্স ভার্সন বলতে পারেন পলিল্যাং প্লগিনকে। কারণ, এই প্লাগিনে WMPL এবং Q-Translate বেশি কিছু ফিচার মিলিয়ে তৈরি করা হয়েছে, যা সম্পূর্ন ফ্রিতে ব্যবহার কতে পারবেন। wpml-string-translation মডিউলটির মিক্সারও এই প্লাগিনে পেয়ে যাবেন।

এই প্লাগিনটি মাধ্যমেও আপনি প্রতিটি ভাষার জন্য আলাদা করে ইউআরএল সেট করতে পারবেন, যা এসইও এর জন্য অনেক বড় সাপোর্ট। ইন্সটলেশন অন্যান্য ওয়ার্ডপ্রেস প্লাগিনের মতই। ইন্সটল করার পর ড্যাশবোর্ড থেকে Languages অপশন থেকে প্লাগিনটির সব সেটিংস করতে পারবেন।

ডাউনলোড এবং ডকুমেন্টেশনের জন্য এই লিঙ্কে ভিজিট করুণ।

৪। Loco Translate

যারা মাল্টল্যাঙ্গুয়েজ সাইট তৈরি করেন বা করবেন তাদের জন্য ১০০% হেল্পফুল প্লাগিনটি হচ্ছে Loco Translate। কারণ, আমরা যারা মাল্টিল্যাগুয়েজ সার্ভিস দেই, বা অনেক ক্লাইন্টের রিকোয়ারমেন্ট থাকে তার সাইটকে মাল্টিল্যাংগুয়েজ করে দিতে হবে, তাহলে একটা ব্যাপার মাথা আসে, সেটা হল ক্লাইন্টের রিকোয়ারমেন্ট অনুযায়ী ল্যাঙ্গুয়েজ ফাইল তৈরি করতে হবে। তো, ল্যাঙ্গুয়েজ ফাইল তৈরি করতে হলে সবচেয়ে জনপ্রিয় সফটওয়্যার হচ্ছে Poedit। আপনারা অনেকেই Poedit-এর নাম ও কাজ জানেন আশা করি। যারা জানেন না, সার্চ করে জেনে নিন এখনই।

Poedit দিয়ে ল্যাঙ্গুয়েজ ফাইল তৈরি করা খুব কঠিন না হলেই কিছুটা লেন্থি, সাথে ম্যানুয়ালি টেক্সট ট্রান্সলেশন করে ফাইল সেভ করে তারপর আপলোড করতে হবে। খানিকটা সময় সাপেক্ষ তাইনা?

যারা, এইসব ঝামেলা পোহাতে চাইবেন না, তাদের জন্য আদর্শ আরেকটি প্লাগিন হচ্ছে Loco Translate! আপনি নিজের বা ক্লাইন্টের অ্যাডমিন প্যানেলে লগইন থেকেই লাইভ, থিম, প্লাগিন এমনকি যেকোনো ভাষায় ওয়ার্ডপ্রেসের কোর ইলিমেন্টগুলোকেও ভাষান্তর করে অনলাইনেই সেভ করে আপডেট দেখতে পারবেন।  এক্ষেত্রে লোকালি কোন সফটওয়্যার ইন্সটল করা বা ল্যাঙ্গুয়েজ ফাইল আপলোড করা ঝামেলা থাকবেনা।

ইন্সটলেশন অন্যান্য ওয়ার্ডপ্রেস প্লাগিনের মতই। ইন্সটল করার পর ড্যাশবোর্ড থেকে Loco Translate অপশন থেকে প্লাগিনটির সব সেটিংস করতে পারবেন।

ডাউনলোড এবং ডকুমেন্টেশনের জন্য এই লিঙ্কে ভিজিট করুণ।

৫। অন্যান্য প্লাগিনসঃ

উপরোক্ত প্লাগিনগুলো শুধুমাত্র সিঙ্গেল সাইটকে খুব সহজে সাপোর্ট দিবে, কিন্তু, আপনি যদি মনে করে ওয়ার্ডপ্রেস মাল্টিসাইটের জন্য ট্রান্সলেটর দরকার, তাহলে Multisite Language Switcher, MultilingualPress এবং WPGlobus – Multilingual Everything! প্লাগিনগুলো চেক করে দেখতে পারেন।

একটি গুরুপ্তপূর্ন ব্যাপার বলে রাখা ভাল, WPML প্লাগিন বাদে কোন প্লাগিনই অটোমেটিক ট্রান্সলেশন সাপোর্ট করে না। অনেক ক্ষেত্রে WPML এও ম্যানুয়ালি ট্রান্সলেশন করে দিতে হবে। তবে, সবচেয়ে বড় সুবিধা হল, যেকোনো একটি প্লাগিন ব্যবহার করে আপনার সাইটকে একের অধিক ভাষায় ভাষান্তর করতে পারবেন এবং আপনার ব্যবসায়কে বিশ্বের যেকোনো দেশে প্রমোট করতে পারবেন।

এটি শুধুমাত্র প্লাগিনগুলোর ফিচার নিয়ে একটি রিভিউ পোস্ট। যদিও আমি উপরের প্রথম ৪টি প্লাগিন নিয়ে একের অধিক ওয়েবসাইটে কাজ করে। তবে, শুধুমাত্র Q-Translate নিয়ে ব্যাসিক কিছু আর্টিকেল লিখেছি। আশা করি আপনাদের কাজে আসবে।

পরিশেষে বলবো, প্লাগিনগুলো নিয়ে কিভাবে কাজ করতে হয় তা নিয়ে গুগল করলে, ইউটিউবে চেক করলে বা প্লাগিনগুলোর ডকুমেন্টেশন থেকেও শিখে নিতে পারেন কিভাবে প্লাগিনগুলো ব্যবহার করে আপনার সাইটকে মাল্টিল্যাংগুয়েজ সাপোর্টিভ করবেন। আর আপনি চাইলে আমি নিজেও আপনাদের সাইটগুলোকে মাল্টিল্যাঙ্গুয়েজ সাপোর্টিভ করে দিতে পারবো। ইচ্ছুক থাকলে আমার সাথে যোগাযোগ করতে পারেন নিচের কমেন্ট বক্সে।

আজ এই পর্যন্তই! সবাই ভাল থাকবেন, সুস্থ থাকবেন। আর হ্যাঁ, অ্যাডভানস ওয়েব ডিজাইন এবং অ্যাডভানস ওয়ার্ডপ্রেস ওয়েব ডেভেলপমেন্ট শিখতে আমাদের কোর্সগুলো চেক করতে পারেন। 🙂

Loading...

আউটসোর্সিং বিষয়ক ফ্রি ইবুক পেতে চান?

নিচের ফরমে আপনার ইমেইল অ্যাড্রেস দিয়ে সারস্ক্রাইব করুণ আর নিয়ে নিন ফ্রি ইবুক।
ইমেইল অ্যাড্রেস
Secure and Spam free...

আউটসোর্সিং বিষয়ক ফ্রি ইবুক পেতে চান?

নিচের ফরমে আপনার ইমেইল অ্যাড্রেস দিয়ে সারস্ক্রাইব করুণ আর নিয়ে নিন ফ্রি ইবুক।
ইমেইল অ্যাড্রেস